• মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০৫:১৪ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
নোটিশ :
প্রতিটি জেলায় দক্ষ ও অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে বেতন-ভাতা আলোচনা সাপেক্ষ।আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন ০১৮৬৫-১১৫৭৮৭ আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বাগতম>> তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে সাথে থাকুন ধন্যবাদ।

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

রিপোর্টার
আপডেট : মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৯

আমি বান্দরবান পার্বত্য জেলার আলীকদম উপজেলার ‘অসতি ত্রিপুরা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’ এর প্রধান শিক্ষক হই। গত ১৮/০৮/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ আপনার সুযোগ্য সম্পাদনায় প্রকাশিত chtmedia24.com এ ‘পরীক্ষা চলাকালে বিদ্যালয় ছেড়ে আড্ডা দিয়ে বেড়া”েছন শিক্ষক জয়নব আরা’ শিরোনামের সংবাদটি আমার দৃষ্টি আকর্ষণ হয়েছে। সংবাদটি প্রতিবেদক সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যেমূলক ও মনগড়াভাবে সৃজিত করেন। সাংবাদিকতার স্বাভাবিক নিয়ম মেনে সংবাদে আমার বক্তব্য প্রকাশ করা হয়নি। গতকাল ১৮/০৮/২০১৯ ইং থেকে অন্যান্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো অত্র বিদ্যালয়েও সকাল ১০ টা থেকে ১ম ও ২য় শ্রেণীর পরীক্ষা শুরু হয়। বিকাল বেলায় অনুষ্ঠেয় ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কম থাকায় তা ফটোকপি করার জন্য সকাল আনুমানিক ১০ টার সময় আমি উপজেলা সদরের তুষ্টি কম্পিউটারে যাই। সেখান থেকে আমি বেলা এগারোটার দিকে বিদ্যালয়ে ফিরে আসি। উল্লেখ্য যে, অত্র বিদ্যালয়ে কোন দপ্তরী নেই। তাই সকল ধরণের অফিসিয়াল কাজ বিদ্যালয়ে এবং বাহিরে প্রধান শিক্ষক হিসেবে আমাকেই করতে হয়। হাসান মাহমুদ ও দিপু তঞ্চঙ্গ্যা নামে দু’ ব্যক্তি আমি এবং অন্য সহকারি শিক্ষকরা অফিসকক্ষে না থাকাবস্থ্ায় বিনাঅনুমতিতে অফিসকক্ষে ঢুকে অফিসের অন্যান্য কাগজপত্র তল্লাশী, ফাইলপত্র তছনছ করে আলমিরা থেকে হাজিরা খাতা বের করে ছবি তুলে নিয়ে যায়। ঐ সময় সহকারি শিক্ষকরা তাদের পরিচয় জানতে চাইলে নিজেদের সাংবাদিক পরিচয় দেন। তারা যদি সাংবাদিক হন তাহলে সরকারি অফিসে বিনাঅনুমতিতে ঢুকে এ ধরণের তল্লাশি এবং আলমিরায় হাত দেয়া সাংবাদিকতার শিষ্টাচার বহির্ভূত। এরা দৈনিক পূর্বদেশ এর স্থানীয় প্রতিবেদককে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মনগড়াভাবে উপরোক্ত সংবাদটি প্রকাশ করায়। সংবাদে স্থানীয় প্রেসক্লাব অফিসকেও জড়ানো হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদে আত্মপক্ষ সমর্থনে প্রতিবেদক আমার কিংবা প্রেসক্লাব কর্র্তৃৃপক্ষের বক্তব্য নেননি। সংবাদটি পরিকল্পিতভাবে আমার মানহানি ও সুনাম ক্ষুণœ করার জন্য করা হয়েছে। আমি উপরোক্ত শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

উল্লেখ থাকে যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের A-২র থেকে মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট প্রতিযোগিতা- ২০১৪ এবং ২০১৭ সালে আমি বাংলাদেশে সেরা দশজন শিক্ষকের মধ্যে একজন নির্বাচিত হই। ২০১৫ সালে সরকারিভাবে আমি ‘স্কুলস্ অনলাইন পার্টনারশীপ (কানেক্টিং ক্লাসরূম) এর ওপর ইংল্যা- সফর করি। এ সময় ইংল্যা-ের স্কটস্ প্রাইমারী স্কুল ভিজিটকালে সেখানকার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করায় হেভারিং এর মেয়র আমাকে রানীর পোষাক পরিয়ে এ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন। আমি ইতোপূর্বে বান্দরবান জেলায় চারবার জেলা শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছি। এছাড়াও ২০১৭ সালে মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট প্রতিযোগিতায় আমি চট্টগ্রাম বিভাগীয় পর্যায়ে ১ম স্থান লাভ করি। আমি আমার বিদ্যালয়কে নিজের ঘরের মতো মনে করে আন্তরিকভাবে বিদ্যালয় পরিচালনা করি।

প্রতিবাদকারী

(জয়নব আরা বেগম)

প্রধান শিক্ষক

অসতি ত্রিপুরা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

আলীকদম, বান্দরবান।



ফেসবুকে আমরা