• মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০৪:১৩ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
নোটিশ :
প্রতিটি জেলায় দক্ষ ও অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে বেতন-ভাতা আলোচনা সাপেক্ষ।আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন ০১৮৬৫-১১৫৭৮৭ আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বাগতম>> তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে সাথে থাকুন ধন্যবাদ।

স্থানীয় জনগনের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করা হবে-উখিয়ায় সেনাপ্রধান।

রিপোর্টার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২০

শফিক আজাদ::

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা পরিদর্শন শেষে ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ বিষয়ে কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময়কালে সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, সবার আগে আমাদের দেশের জনগণ, তারপর অন্য কিছু। তাই স্থানীয় জনগণের সুবিধা অসুবিধা এবং স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চতুর পাশে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারী) বেলা ১টার দিকে কুতুপালং ও লম্বাশিয়া ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে ক্যাম্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং সেনাবাহিনীর কর্তা ব্যক্তিদের সাথে বৈঠকে এসব কথা বলেন।

এর আগে বেলা ১২ টার দিকে সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহামদ কুতুপালং ক্যাম্পের পাশে নির্মাণ করা হেলিপ্যাডে অবতরণ করে। সেখানে সেনা প্রধানকে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন, শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মাহবুবুল আলম তালুকদার, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক সরওয়ার কামাল,উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী ও উখিয়া থানার ওসি আবুল মনসুর।

সেখান থেকে সরাসরি ক্যাম্পে চলে যান, এসময় সেনা প্রধানের সাথে ছিলেন, উখিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী সহ সেনাবাহিনী ও প্রশাসনের বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মকর্তারা।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানান,বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ হেলিকপ্টার যুগে কুতুপালং ক্যাম্পে পাশের হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। সেখান থেকে কুতুপালং ও লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নির্মাণাধীন কাঁটাতারের বেড়া পরিদর্শন করেন। পরে উখিয়া ডিগ্রী কলেজ সংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত আর্মি কো অডিনেশন কর্মকতার্দের উদ্যেশ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মানসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ব্রিফিং করেন। এ সময় তিনি ক্যাম্পে কাটাতারের বেড়া নির্মাণে স্থানীয় জনগনের স্বার্থ, সুবিধা অসুবিধা বিবেচনা করার জন্য করার নির্দেশনা দেন। পরে বেলা দেড়টার দিকে সেনাপ্রধান উখিয়া ত্যাগ করেন।



ফেসবুকে আমরা