সিলেটে গণধর্ষণ, তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে তদন্ত কমিটি | Daily Cox News
  • রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ১২:২৪ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সিলেটে গণধর্ষণ, তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে তদন্ত কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
সিলেটে গণধর্ষণ, তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে তদন্ত কমিটি

সিলেট মুরারীচাঁদ কলেজ (এমসি কলেজ) ছাত্রাবাসে তুলে নিয়ে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি সিলেট পৌঁছেই তাদের তদন্ত কার্যক্রম শুরু করে। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে এমসি কলেজে পৌঁছে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের মাধ্যমে তাদের তদন্তকাজ শুরু করেন।

পরিদর্শনের পর তদন্ত কমিটির প্রধান মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউসি) পরিচালক (প্রশাসন) শাহিদুল কবির চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, তারা তিন দিনের মধ্যে প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন আর সাত দিনের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে জমা দেবেন। প্রতিবেদনে এ ঘটনায় কার কী গাফিলতি ছিল এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা এড়াতে কি করা উচিত সবই প্রতিবেদনে থাকবে বলে জানান তিনি

‘করোনাকালে কলেজ বন্ধ থাকার পরও ছাত্রাবাস কেন খোলা ছিল এ বিষয়টিও তদন্ত করে দেখা হবে জানিয়ে শাহিদুল কবির চৌধুরী বলেন, ‘এ রকম একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গণধর্ষণ খুবই নিন্দনীয় ঘটনা। যেহেতু বিষয়টি শিক্ষার সঙ্গে জড়িত, তাই আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। মন্ত্রণালয় আমাদের বলেছে তিনদিনের মধ্যে প্রাথমিক এবং সাতদিনের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিতে। আমরা এমসি কলেজের প্রশাসনের অনেকের সঙ্গে কথা বলেছি, ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেছি। আগামীকালও আমরা সিলেটে আমাদের তদন্তকাজ চালাব।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু বিষয়টি স্পর্শকাতর, তাই নির্যাতিতা নারীর সঙ্গে কথা বলাটা সহজ হবে না। তবু আমরা চেষ্টা করবো তার সঙ্গে কথা বলার। তদন্তের স্বার্থে এটি করা দরকার।

এর আগে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) শাহিদুল কবির চৌধুরীর নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের এ কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তদন্ত কমিটির সদস্যরা আজ বিকেলে সিলেট পৌঁছেই এমসি কলেজে গিয়ে নিজেদের তদন্তকাজ শুরু করেন। তারা এমসি কলেজ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলেছেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পর থেকে এমসি কলেজ বন্ধ থাকার মধ্যেও ছাত্রাবাস খোলা রেখে শিক্ষার্থীদের থাকতে দেয়া নিয়ে কলেজ অধ্যক্ষ সালেহ আহমদ সমালোচনার মুখে পড়েন। এমনকি সিলেট আওয়ামী লীগ এ ঘটনার জন্য অধ্যক্ষের অদক্ষতাকে দায়ী করে তার পদত্যাগ দাবি করে। এ অবস্থায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ওই তদন্ত কমিটি গঠন করা হলো।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসের সামনে প্রাইভেটকারের মধ্যেই পালাক্রমে গণধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন।

এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেছেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীরা সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকারের অনুসারী বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় গত রোববার দুপুরে সিলেট মহানগর হাকিম ৩য় আদালতের হাকিম শারমিন খানম নিলার কাছে সেই রাতের ঘটনার জবানবন্দি দেন নির্যাতনের শিকার তরুণী।

চাঞ্চল্যকর এ মামলায় এজাহারনামীয় পাঁচ আসামিসহ সিলেট রেঞ্জ পুলিশ ও র্যাব-৯ এর হাতে গ্রেফতারকৃত ৮ জনের মধ্যে ৬ জনকে ৫ দিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা