টেকনাফ র‍্যাবের অভিযানে তিন মাদকারবারী আটক | Daily Cox News
  • শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৭:০১ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

টেকনাফ র‍্যাবের অভিযানে তিন মাদকারবারী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদন
আপডেট : সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
টেকনাফ র‍্যাবের অভিযানে তিন মাদকারবারী আটক

কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন টেকনাফ-কক্সবাজার রোডের উত্তর বরইতলী গ্রামের বায়তুল রহমান জামে মসজিদের গেইটের সামনে চেকপোষ্ট স্থাপন ৩,৫০০ পিস ইয়াবাসহ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৫।

র‍্যাবের তথ্যসূত্রে,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন টেকনাফ বাজারের দিক হতে টেকনাফ-কক্সবাজার রোড দিয়ে পিকআপ যোগে মাদকদ্রব্য নিয়ে আসছে।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার এর একটি চৌকশ আভিযানিক দল ১১/১০/২০২০ খ্রিঃ আনুমানিক ২১.৫০ ঘটিকায় কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন টেকনাফ-কক্সবাজার রোডের উত্তর বরইতলী গ্রামের বায়তুল রহমান জামে মসজিদের গেইটের সামনের পাঁকা রাস্তার উপর চেকপোষ্ট স্থাপন গাড়ী তল্লাশী শুরু করে। তল্লাশীর একপর্যায়ে টেকনাফ বাজারের দিক হতে একটি পিকআপ চেকপোষ্টের সামনে আসলে র‌্যাব সদস্যগণ পিকআপটি থামানোর সংকেত দেয়। পিকআপটি থামিয়ে কতিপয় ব্যক্তি পিকআপ হতে দৌঁড়ে পালানোকালে আসামী ১। মোঃ ইমরান পাটোয়ারী (৩৫), পিতা- ইছহাক পাটোয়ারী, সাং- গুপ্তমানিক, ইউপি-কুটি পাঁচুরিয়া, ওয়ার্ড নং-০৩, ২। মোঃ মিলন বিশ^াস (৩২), পিতা- মৃত আলী বিশ^াস, সাং-মরডাঙ্গা, ওয়ার্ড নং-০৩, ইউপি- পাঁচুরিয়া, উভয় থানা- রাজবাড়ী, জেলা- রাজবাড়ী, ৩। আলাউদ্দিন ব্যাপারী (৩০), পিতা- মৃত রহমত ব্যাপারী , সাং- চরকৃষ্ণপুর, ওয়ার্ড নং-০২, ইউপি- বাকিগঞ্জ মাদ্রাসা, থানা- কোতোয়ালী, জেলা-ফরিদপুরদের ধৃত করে। আসামীদের পালানোর কারণ জিজ্ঞাসা করলে তারা কোন সন্তোষজনক উত্তর দিতে পারেনি এবং তাদের আচরন সন্দেহজনক মনে হয়। আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে যে তাদের নিকট ইয়াবা ট্যাবলেট আছে। পরবর্তীতে উপস্থিত স্বাক্ষীদের সম্মুখে ধৃত আসামীদের দেহ তল্লাশী করে সর্বমোট ৩৫০০ (তিন হাজার পাঁচশত) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামীরা জানায়যে, দীর্ঘদিন যাবত কক্সবাজার জেলার টেকনাফ সীমান্তবর্তী এলাকা হতে ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে পিকআপযোগে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করে আসছে। উদ্ধারকৃত মাদকের (ইয়াবা) মূল্য আনুমানিক ১৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা প্রায়।

গ্রেফতারকৃত আসামী ও উদ্ধারকৃত মাদক সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা