ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ডের আইন অধ্যাদেশ আকারে জারি হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী | Daily Cox News
  • মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ডের আইন অধ্যাদেশ আকারে জারি হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ধর্ষণ আইন সংশোধন করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন হওয়া আইনটি অধ্যাদেশ আকারে জারি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ২০২০ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ধর্ষক একটা মানুষ হয়তো পশু হয়ে যায়। সেই জন্যই তাদের মধ্যে এই যে পাশবিকতা তার ফলে আজ আমাদের মেয়েরা ক্ষতিগ্রস্ত। আমরা এই আইনটা সংশোধন করে যাবজ্জীবনের সঙ্গে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে ইতোমধ্যে কেবিনেটে পাস করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, যেহেতু পার্লামেন্ট সেশনে নেই তাই আমরা এইটা অধ্যাদেশ জারি করে দিচ্ছি। কাজেই যেকোনো একটা সমস্যা দেখা দিলে সেটাকে মোকাবিলা করা এবং সেটাকে দূর করা এটাই আমাদের লক্ষ্য। এই লক্ষ্য নিয়েই কিন্তু আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনাভাইরাস আরেকটি দুর্যোগ। কারণ আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করি, আমাদের মনুষ্যসৃষ্ট দুর্যোগও মোকাবিলা করতে হয়। এর আগে আপনারা দেখেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোটের সেই আগুনসন্ত্রাস। জীবন্ত মানুষকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছিল। সেটাও কিন্তু আমরা মোকাবিলা করেছি। পাশাপাশি এসিড নিক্ষেপ সেটাকেও আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। সেখানেও আমরা আইন সংশোধন করেছিলাম।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে বন্যা হবে, খরা হবে, ঘূর্ণিঝড় হবে, জলোচ্ছ্বাস হবে, অগ্নিকাণ্ড হবে; সেসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে আমাদের বাঁচতে হবে। প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করে দেশের সার্বিক উন্নয়ন করা এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সেটাই আমাদের লক্ষ্য।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা রাস্তাঘাট যা কিছু তৈরি করি না কেন সকলকে আমি এটাই অনুরোধ করব- আমাদের জলাধার, নদীনালা, খালবিল এগুলো যেন বাধাগ্রস্ত না হয় সেদিকে বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে।

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা