চাকরির নামে এমপিপুত্রের টাকা আত্নসাৎ, পুলিশের আইজিপির কাছে অভিযোগ | Daily Cox News
  • শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চাকরির নামে এমপিপুত্রের টাকা আত্নসাৎ, পুলিশের আইজিপির কাছে অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০
চাকরির নামে এমপিপুত্রের টাকা আত্নসাৎ, পুলিশের আইজিপির কাছে অভিযোগ

ময়মনসিংহ-৭ আসন আসনের সং’সদ সদস্য হাফেজ রুহুল আমিন মাদানীর ছেলে এবং ত্রিশাল ছাত্রলীগের সভাপতি হাসানের বি’রুদ্ধে পুলিশে চাকরি দেয়ার নাম করে টাকা আত্নসাতের অ’ভিযোগ উঠেছে। ভু’ক্তভোগী আবুল কালাম শেখ এ বি’ষয়ে প্রতিকার চেয়ে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বরাবর অ’ভিযোগ করেছেন। ২৯ অক্টোবর এ অ’ভিযোগটি আইজিপি কমপ্লেইন মনিটরিং সেলে জমা দেয়া হয়েছে। যার নম্বর: ১৫৩৬ (২৯-১০-২০)।

অ’ভিযোগের বিবরণ থেকে জানা যায়, ময়মনসিংহ ৭ আসন (ত্রিশাল)’র এর সং’সদ সদস্য হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী, তার ছেলে উপজে’লা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান মাহমুদ, তোফাজ্জল হোসেনের বি’রুদ্ধে অর্থ আত্নসাতের অ’ভিযোগ আনেন আবুল কালাম শেখ। ২০১৯ সালে আবুল কালাম শেখ তার পরিচিত তোফাজ্জল যিনি এমপি এবং তার ছেলের ব্যক্তিগত কাজ করেন, তার মাধ্যমে পুলিশে চাকরির জন্য জমি বিক্রি করে এবং সুদের ও’পর টাকা এনে মোট ১৪ লাখ টাকা দেন। এ পুরো টাকাই তোফাজ্জলের মাধ্যমে এমপিপুত্র হাসান মাহমুদের হাতে গিয়েছে।

টাকা লেনদেনের সময় সাক্ষী হিসাবেও শরীফুল ইসলাম নামের একজন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এই শরীফুল ইসলামের কাছ থেকেও পুলিশের উপ পরিদর্শক পদে চাকরি দিবে বলে এমপি পুত্র হাসান মোট ৩২ লাখ টাকার মধ্যে ২২ লাখ টাকা নিয়েছেন। চাকরি না পাওয়ার পর শরীফুল টাকা ফেরত চাইলে সে টাকা দেয়া হয়নি। উল্টো হু’মকি দেয়া হয়। ফলে ত্রিশাল থানায় এ বছরের ১১ জুলাই একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। যার নম্বর ৬১৪ (১১-০৭-২০)।

এদিকে, এমপি পুত্র এবং ত্রিশাল উপজে’লা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান মাহমুদের সঙ্গে আবুল কালম শেখ এবং শরিফুলেরর টাকা লেনদেনের কথপোকথনের অডিও এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁ’স হয়েছে। সেখানে টাকা নেয়ার কথাও স্বীকার করেছেন হাসান মাহমুদ। পুলিশের মহাপরিদর্শক বরবার অ’ভিযোগ পত্রে আবুল কালম শেখ এমপি পুত্র হাসান কর্তৃক নানা ধরণের হু’মকির সম্মুখীন হচ্ছেন বলেও জানান।

এসব অ’ভিযোগের বি’ষয়ে এমপি পুত্র হাসান মাহমুদকে ১ টা ৯ মিনিট থেকে কয়েকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, হাফেজ রুহুল আমিন মাদানীর পুত্র হাসান মাহমুদ ত্রিশাল উপজে’লা ছাত্রলীগের সভাপতি হলেও তিনি ব্যক্তিজীবনে বিবাহিত এবং দুই স’ন্তানের জনক। এছাড়া তার বি’রুদ্ধে নারী কে’লেংকারি থেকে শুরু করে মা’দক ব্যবসা, চাঁ’দাবাজির অ’ভিযোগও রয়েছে।

সূত্রঃ ভোরের পাতা

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা