• রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ০১:১৬ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
নোটিশ :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ করুন>>01865-115787>>>01819785496

স্বর্ণালংকারসহ নিখোঁজ নববধূর লাশ মিললো জেলের জালে

রিপোর্টার
আপডেট : রবিবার, ৮ মার্চ, ২০২০

নিখোঁজ নববধূর সন্ধানে মরিয়া ডুবুরিদল; জেলের জালে মিললো স্বর্ণার লাশ।

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী সদর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুর রউফ জানিয়েছেন, পদ্মা নদীতে নৌকা ডুবির ঘটনায় তৃতীয় দিনের মতো উদ্ধার অভিযান চলছে। গতকাল রোববার সকাল থেকে নিখোঁজ কনেসহ তিনজনকে উদ্ধারে দমকল বাহিনীর ডুবুরি দল আবারও উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে।

আজ রোববার দুপুর ১টার দিকে ঘটনাস্থলের অদুরে জেলের জালে আটকা পড়ে নিখোঁজ রুবাইয়া খাতুন স্বর্ণার (১২) লাশ উদ্ধার করেছে দমকল কর্মীরা এ নিয়ে নিহত বেড়ে দাড়িয়েছে সাতজনে। উদ্ধার স্বর্ণার বাবার নাম রবিউল ইসলাম রবি। তাদের বাড়ি পবায় উপজেলার আলীগঞ্জ মোল্লাপাড়া। স্বর্ণা কনে সুইটি খাতুন পুর্ণির ফুপাতো বোন। স্বর্ণা অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী ছিলেন।

দমকল বাহিনীর রাজশাহীর সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুর রউফ বলেন, এখনো কনে সুইটি খাতুন পুর্ণি (২০) ও তার খালা আঁখি খাতুন (২৫) নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের খোঁজ না পাওয়া পর্যন্ত অভিযান চলবে। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে হাফ কিলো দুরে পদ্মায় মাছ ধরা জেলের জালে স্বর্ণার লাশ আটকা পড়ে। পরে জেলেরা উদ্ধার র্কর্মীদের জানায়। দুপুর ১টার দিকে তারা স্বর্ণার লাশ উদ্ধার করে পদ্মার পাড়ে নিয়ে যায়।

আব্দুর রউফ বলেন, সকাল ১০টার দিকে অভিযান শুরু হয়। বেলা ১১টার দিকে তারা ডুবে যাওয়া দ্বিতীয় নৌকাটি উদ্ধার করা হয়েছে। নৌ-পুলিশের রাজশাহী থানার ওসি মেহেদী মাসুদ জানান, শনিবার ছয়জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রাতে তাদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে লাশ দাফনের জন্য নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য,গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বৌভাতের অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে রাজশাহী নগরীর শ্রীরামপুরের বিপরিতে চরখিদিরপুর মধ্যপদ্মায় ৩৬ যাত্রী নিয়ে দুই নৌকা ডুবে যায়। পরে দমকল, বিজিবি, নৌপুলিশ ও বিআইডব্লিউটি’র ডুবুরি দল যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে এখন পর্যন্ত সাতজনের লাশ উদ্ধার করেছে। নিহতরা হলেন, কনের বড় বোন শাহীনুর বেগমের স্বামী রতন আলী (৩০), তাঁদের মেয়ে মরিয়ম খাতুন (৫), চাচা শামীম হোসেন (৩৫), চাচি মিনা খাতুন (৩০), চাচাতো বোন রশ্নি (৭) ও খালাতো ভাই এখলাস আলী (২২) ও রুবাইয়া খাতুন স্বর্ণার (১২)।



ফেসবুকে আমরা