• শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
নোটিশ :
প্রতিটি জেলায় দক্ষ ও অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে বেতন-ভাতা আলোচনা সাপেক্ষ।আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন ০১৮৬৫-১১৫৭৮৭ আমাদের ভুবনে আপনাকে স্বাগতম>> তথ্য নির্ভর সংবাদ পেতে সাথে থাকুন ধন্যবাদ।

নাইমের অসাধারন ইনিংসের পরও হারল বাংলাদেশ

স্পোর্ট ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ১০ নভেম্বর, ২০১৯

আশা জাগিয়েও হেরে গেল বাংলাদেশ। সিরিজ জয়ের ইতিহাস গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েও হোচট খেল বাংলাদেশ। মোহাম্মদ নাইম শেখের ব্যাটিং তাণ্ডবের পরও সিরিজের শেষ ম্যাচে ৩০ রানে হেরে গেল টাইগাররা। রোববার ভারতের নাগপুরের বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে স্বাগতিকরা। প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৭৪ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে স্বাগতিক ভারত। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন স্রেয়াশ আয়ার। এছাড়া ৫২ রান করেন লোকেশ রাহুল। ১৭৫ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় বাংলাদেশ। দলীয় মাত্র ১২ রানে লিটন দাস ও সৌম্য সরকারের উইকেট হারিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয়ে পড়ে যায় টাইগাররা। সেই অবস্থা থেকে দলকে টেনে তুলেন তরুণ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ নাইম শেখ। তৃতীয় উইকেটে মোহাম্মদ মিঠুনের সঙ্গে গড়েন ৯৮ রানের জুটি। তাদের জুটিতে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকেন টাইগার সমর্থকরা। এরপর খেই হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। পরপর দুই বলে দুই উইকেট নেই। ২৯ বলে ২৭ রান করে দিপক চাহারের তৃতীয় শিকার মিঠুন। ব্যাটিংয়ে নেমে কিছু বুঝে ওঠার আগেই শিবম দুবের গতির বলে স্ট্যাম্প ভেঙে যায় মুশফিকুর রহিমের। দিল্লিতে ৬০ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে জয় উপহার দেয়া মুশফিক আজ ফেরেন শূন্য রানে। তার বিদায়ে ১৩.১ ওভারে ১১০ রানে ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। জয়ের জন্য শেষ ২৮ বলে প্রয়োজন ছিল ৪৯ রান। খেলার এমন অবস্থায় বিভ্রান্ত হন নাইম শেখ। শিবম দুবের বলে ভেঙে যায় নাইমের স্ট্যাম্প। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে কিছু বুঝে ওঠার আগেই দুবের বলে ক্যাচ তুলে দেন আফিফ হোসেন। পরপর দুই উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে কার্যত ছিটকে যায় বাংলাদেশ। এরপর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও আমিনুল ইসলাম বাড়তি দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে না পারায় শেষ পর্যন্ত ৩০ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ।



ফেসবুকে আমরা