• শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:১০ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
উখিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আর্মড পুলিশের এএসআই নিহত আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সবসময়ই অত্যন্ত শক্তিশালী ও গুরুত্বপূর্ণ দল -কৃষিমন্ত্রী জয়পুরহাটে দুই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তির কারাদণ্ড মৌলভীবাজারে শ্রীমঙ্গলে রেলের জমি উদ্ধারে বাধা, রেলের এক্সাভেটরে দুর্বৃত্তের আগুন শেষ হলো সংসদের চতুর্দশ অধিবেশন দেশে করোনায় আরও ৫১ জনের মৃত্যু ইভ্যালির সিইও রাসেল গ্রেপ্তার প্রবাস থেকে স্বামী আসার খবরে প্রেমিকের হাত ধরে পালালো এক সন্তানের জননী কোটবাজারে চাকবৈঠার ইব্রাহিম বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ র‍্যাবের হাতে আটক রত্নাপালং ইউপি নির্বাচন : চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে ইমাম হোসেন

ইন্দোনেশিয়ার ক্যাম্প থেকে কয়েকশ’ রোহিঙ্গা ‘গায়েব’

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২১
IMG 20210129 080838

ইন্দোনেশিয়ার ক্যাম্প থেকে কয়েকশ’ রোহিঙ্গা ‘গায়েব’
ইন্দোনেশিয়ার একটি শরণার্থী শিবির থেকে হঠাৎ করেই গায়েব কয়েকশ’ রোহিঙ্গা। তারা কোথায় আছেন, কবে গেছেন তা নিশ্চিত করে বলতে পারছে না কেউই। ধারণা করা হচ্ছে, এই রোহিঙ্গারা হয়তো সুযোগ বুঝে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত বছরের জুন থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রায় ৪০০ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করে লোকসুমাওয়ে এলাকার একটি শরণার্থী শিবিরে রেখেছিল ইন্দোনেশীয় কর্তৃপক্ষ।

তবে চলতি সপ্তাহে দেখা গেছে, সেখানে এখন মাত্র ১১২ জন রোহিঙ্গা রয়েছেন। বাকিরা কবে কোথায় গেছেন তা জানে না শরণার্থীদের দেখভালের দায়িত্বে থাকা জাতিসংঘ কিংবা স্থানীয় কর্তৃপক্ষও। এসব রোহিঙ্গা মালাক্কা প্রণালী দিয়ে মালয়েশিয়ায় পালিয়ে যেতে পারেন বলে মনে করছেন অনেকে।

লোকসুমাওয়ের রোহিঙ্গা টাস্কফোর্সের প্রধান রিদওয়ান জলিল বলেন, ‘আমরা এখনো জানি না তারা (রোহিঙ্গা) কোথায় গেছে। তবে তারা সুযোগ পেলেই পালাবে, কারণ ওটাই তাদের লক্ষ্য।’

২০১৭ সালে মিয়ানমারে সেনাদের দমন-পীড়নে অন্তত সাড়ে সাত লাখ মুসলিম রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। সেখান থেকেও পাচারকারীদের সাহায্য নিয়ে কেউ কেউ সাগরপথে ইন্দোনেশিয়া-মালয়েশিয়া পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করেন বলে জানা যায়।
কিছুদিন আগে লোকসুমাওয়ে শিবিরের ১৮ রোহিঙ্গা ও প্রায় এক ডজন সন্দেহভাজন পাচারকারীকে মেদান শহর থেকে কয়েকশ’ কিলোমিটার দূর থেকে গ্রেফতার করেছে ইন্দোনেশীয় পুলিশ। অবৈধপথে মালয়েশিয়া প্রবেশের অন্যতম রুট হিসেবে বিবেচিত হয় এ শহরটি।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র মিত্র সূর্যনো বলেছেন, ‘আশ্রয় শিবিরের বাইরে বিপদ ও ঝুঁকির কথা জানিয়ে শরণার্থীদের বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। তারপরও তারা যাচ্ছে।’

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে, তাদের (রোহিঙ্গা) অনেকেরই মালয়েশিয়ার মতো দেশগুলোতে আত্মীয়-স্বজন রয়েছে। তাদের যাত্রা করার অন্যতম কারণ হয়তো এটি।’

মানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ, রোহিঙ্গাদের দেখভালের দায়িত্ব গতমাসে ইউএনএইচসিআর নেয়ার পর আশ্রয়কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা ব্যাপকভাবে কমিয়ে দিয়েছে ইন্দোনেশীয় সরকার। এর কারণেই রোহিঙ্গারা সহজে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর