• শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
উখিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আর্মড পুলিশের এএসআই নিহত আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সবসময়ই অত্যন্ত শক্তিশালী ও গুরুত্বপূর্ণ দল -কৃষিমন্ত্রী জয়পুরহাটে দুই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তির কারাদণ্ড মৌলভীবাজারে শ্রীমঙ্গলে রেলের জমি উদ্ধারে বাধা, রেলের এক্সাভেটরে দুর্বৃত্তের আগুন শেষ হলো সংসদের চতুর্দশ অধিবেশন দেশে করোনায় আরও ৫১ জনের মৃত্যু ইভ্যালির সিইও রাসেল গ্রেপ্তার প্রবাস থেকে স্বামী আসার খবরে প্রেমিকের হাত ধরে পালালো এক সন্তানের জননী কোটবাজারে চাকবৈঠার ইব্রাহিম বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ র‍্যাবের হাতে আটক রত্নাপালং ইউপি নির্বাচন : চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে ইমাম হোসেন

ইয়াবা ব্যবসায়ী নুরুল আবছারের ৪ বছরের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট সময় : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
ইয়াবা ব্যবসায়ী নুরুল আবছারের ৪ বছরের কারাদণ্ড

চট্টগ্রাম: নগরের পতেঙ্গা থানা পুলিশের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী নুরুল আবছারকে মাদকের মামলায় ৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই রায়ে আদালত তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে দুই মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ পঞ্চম আদালতের বিচারক মো. জহির উদ্দিন এ আদেশ দেন বলে জানান সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর বিশ্বজিৎ বড়ুয়া।

দণ্ডিত নুরুল আবছার নগরের পতেঙ্গা থানাধীন দক্ষিণপাড়ার বদিউল আলমের ছেলে।

অ্যাডভোকেট বিশ্বজিৎ বড়ুয়া বলেন, ২০১৮ সালের ৩ জুন পতেঙ্গা নেভাল রোডের চাইনিজ ঘাটের সামনে থেকে একটি বস্তাসহ নুরুল আবছারকে গ্রেফতার করে পতেঙ্গা থানা পুলিশ। বস্তায় ৪০ বোতল বিদেশি মদ পাওয়া যায়।

পরে এ ঘটনায় পুলিশ নুরুল আবছারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মদসহ গ্রেফতারের মামলায় পুলিশ নুরুল আবছারের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।
সোমবার যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ পঞ্চম আদালতের বিচারক মো. জহির উদ্দিন তাকে ৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। একই রায়ে আদালত তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে দুই মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।
২০১৮ সালে পতেঙ্গা থানা পুলিশ ৪০ বোতল বিদেশি মদসহ নুরুল আবছারকে হাতেনাতে ধরলেও পরে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে পুলিশ সদস্যদের হয়রানি করতে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশে সেই মামলা তদন্ত করে দুর্নীতি দমন কমিশন।

দুদকের তদন্তে নুরুল আবছারের মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হয়। দুদকের প্রতিবেদনে নুরুল আবছারের মাদক কারবারের সঙ্গে সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। পরে মিথ্যা অভিযোগ করায় নুরুল আবছারের বিরুদ্ধে দুদক বাদি হয়ে মামলা দায়ের করে।

দুদকের ওই মামলায় গত ৯ ফেব্রুয়ারি নুরুল আবছারকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন সিনিয়র মহানগর স্পেশাল দায়রা জজ আশফাকুর রহমানের আদালত।

পতেঙ্গা দক্ষিণ পাড়ার নুরুল আবছার ২০০০ সালের দিকে ছিলেন নৌকার মাঝি। নৌকা চালিয়েই করতেন জীবিকা নির্বাহ। কিন্তু তার ভাগ্য বদলে যায় নদীর ওপাড়ের ইয়াবা ব্যবসায়ী জাফরের সঙ্গে পরিচয় হওয়ার পর।

নৌকা দিয়ে জাফরের ইয়াবা পরিবহন করতেন নুরুল আবছার। এক সময় জাহাজ থেকে বিদেশি মদ সংগ্রহ করে বিক্রিও শুরু করেন। আনোয়ারা, কর্ণফুলী এলাকা দিয়ে আবছার তার মাদক বেচাকেনা করতেন।

২০১৫ সালে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা যাওয়ার পর ইয়াবা ব্যবসায়ী জাফরের বিপুল ইয়াবা সাম্রাজ্য ধরে রেখেছিলেন নুরুল আবছার। তখন থেকেই ফুলে ফেঁপে উঠেন। রাতারাতি টাকার বিনিময়ে বাগিয়ে আওয়ামী লীগের পদও। রাতারাতি হয়ে যান আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য।

মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় ২০১৯ সালের ৩১ জানুয়ারি নুরুল আবছারকে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য পদ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়। পতেঙ্গা এলাকায় মাদকের গডফাদার হলেও বরাবরই ছিলেন ধরাছোঁয়ার বাইরে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর