• শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:০৯ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

উখিয়ার হলদিয়া পালংয়ে আদালতের আদেশ অমান্য করে বহুতল ভবণ নির্মাণের অভিযোগ

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১
PicsArt 08 19 11.44.35

বার্তা পরিবেশক::

উখিয়ার হলদিয়া পালংয়ে আদালতের আদেশ অমান্য করে ভবণ নির্মাণ করে যাচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে । শুধু তাই প্রভাবশালী বিবাদী গং ক্ষমতার প্রভাব বিস্তার করে এখন ভুক্তভোগী নিরহ পরিবার কে উচ্ছেদ করতে বসত ভিটায় জোরপূর্বক বাউন্ডারি ওয়ালের কাজ শুরু করেছে। এ ঘটনায় দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায় , উপজেলার রত্না পালং ইউনিয়নের ভালুকিয়া পালং আবছার বাপের পাড়ার মরহুম জাগের হোছন বিগত ৭/৫/১৯৮৪ সালে রেজিস্ট্রার দলিল সম্পাদন করে ১ একর জমি ক্রয় করে। তার মৃত্যুতে পুত্র মোহাম্মদ হোছন ও মাহমুদুল হক সহ অন্যান্য ওয়ারিশ গং ভোগ দখল করে আসতেছে। মৌজা হলদিয়া পালং তফসিল আরএস জমাবন্দি খতিয়ান নম্বর ২৬৩/২৫। আরএস দাগ নম্বর ৩১৬১/৬২৯৫ মোতাবেক বিএস খতিয়ান নম্বর ৫৬১। বিএস দাগ নম্বর ৩২১৮ তৎ সৃজিত বিএস ৮১৯ নং খতিয়ানের সৃজিত বিএস দাগ ৩২১৮/৫০৫৪। জমির পরিমাণ ৮০ শতক।

অভিযোগে প্রকাশ দীর্ঘ দিন ধরে নিরহ মোহাম্মদ হোসেন গং ভোগদখলীয় জায়গা জবরদখল করতে মরিয়া হয়ে উঠে স্হানীয় প্রভাবশালী মহল।

জায়গার মালিক পক্ষ অভিযোগ করে বলেন , ব্যক্তি মালিকানাধীন জোত জায়গায় দক্ষিণ হলদিয়া পালং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বহুতল নির্মান কাজ শুরু করলে প্রতিবাদ করা হয়। কিন্তু ক্ষমতার পেশিশক্তি দেখিয়ে ভবণের কাজ শুরু করলে ভুক্তভোগী পরিবার আইনের আশ্রয় গ্রহন করে।

আইনজীবী সূত্রে জানা গেছে , গত ২৭ নভেম্বর ২০১৯ ইং মৃত জাগির হোছনের পুত্র মোহাম্মদ হোছন গং বাদী হয়ে উপরোক্ত তফসিলভোক্ত জায়গায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন । এতে বিবাদী করা হয় বাদশা মিয়া চৌধুরীর পুত্র খোরশেদ আলম চৌধুরী, উপজেলা প্রকৌশলী ও ঠিকাদারী প্রতিষ্টান তৌহিদ এন্ড ব্রাদার্সের পক্ষে কবির আহমদ সহ ১১ জন। যার মামলা নম্বর অপর ৮০/২০১৯।

বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে এনে ১ নম্বর থেকে ৪ নম্বর বিবাদীদের বিরোধীয় জমিতে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ প্রদান করেন। যার আদেশ নম্বর ০৩। তারিখ ১/১২/২০১৯। প্রয়োজনীয় ব্যবস্তা নিতে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কে অবগতি করা হয়।
এদিকে মামলার বাদী অভিযোগ করে বলেন আমরা গরবী পরিবার হওয়ায় ক্ষমতাশালীরা আদালতের আদেশ অমান্য করে ভবণ নির্মাণ করতেই থাকে। শুধু তাই নই আমাকে সহ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে রড সিমেন্ট চুরি করছি মর্মে সাজানো মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। এখনো মিথ্যা মামলা দিয়ে আরও হয়রানি করবে বলে হুমকি ধমকি দিচ্ছে।

মোহাম্মদ হোছন জানান, আমাদের কে বিনা অপরাধে কারাগারে আটকে রেখে চলাচলের রাস্তায় ভাউন্ডারী ওয়াল নির্মান করে। এখন রাস্তার নামে বসতভিটায় বসবাস রত বোন আনোয়ারা বেগম ও ভগ্নিপতি ছেহের আলীকে উচ্ছেদ করতে পায়তারা শুরু করেছে ।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে , মৃত জাগির হোছন দক্ষিণ হলদিয়া পালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য ২০ শত জমি দান করেছেন। ভুক্তভোগী পরিবার সদস্যরা জানান, এলাকাবাসীর অনুরোধে আমাদের মরহুম পিতা বিদ্যালয়ের নামে জায়গা দান করার পরও প্রভাবশালীরা আমাদের একমাত্র বসতভিটায় দখলে মরিয়া হয়ে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে ।

এ ব্যয়পারে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট হস্তক্ষেপ কামনা করছেন মামলার ফরিয়াদী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর