• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩২ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
ব্রেইন টিউমার আক্রান্ত তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী টুম্পাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন! ফেসবুককে রোহিঙ্গাবিরোধী তথ্য দিতে নির্দেশ উখিয়ায় পাহাড়ের মাটি পাচারকালে ডাম্পার সহ আটক ১ বিজিবির অভিযানে সাড়ে ৪ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা উদ্ধার রাজধানীর প্রতিটি খাল সংরক্ষণ করা হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী করোনায় আবারও বাড়ল শনাক্ত ও মৃত্যু কক্সবাজারে ২১ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা নিয়ে আটক ৫ রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক তাদের অবশ্যই ফিরে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের জন্য ১৫৮ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র উখিয়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাঃ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

উপমহাদেশের দ্বিতীয় দেশ হিসেবে করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার বাংলাদেশের’

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
BD vaccin 2102041044

‘উপমহাদেশের দ্বিতীয় দেশ হিসেবে করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার বাংলাদেশের’
উপমহাদেশের দ্বিতীয় দেশ হিসেবে বাংলাদেশ বঙ্গভ্যাক্স নামে একটি করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে বাংলাদেশের গ্লোব বায়োটেক এর গবেষণাগারে করোনাভাইরাসের সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন আবিষ্কারক দলের প্রধান দুই বিজ্ঞানি কাকন নাগ ও নাজনীন সুলতানার সঙ্গে বৈঠকে শেষে এ কথা জানান তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি কাকন নাগ ও নাজনীন সুলতানাকে অভিনন্দন জানাই। তারা একটি মৌলিক গবেষণা করে বঙ্গভ্যাক্স নামে করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছেন। যেটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) লিস্টেড করেছে। বাংলাদেশ মেডিক‌্যাল কাউন্সিলের চূড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে।

‘উপমহাদেশে আমরা দ্বিতীয় দেশ হিসেবে এই করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছি। পৃথিবীতে খুব বেশি দেশ এই ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পারেনি। মাত্র হাতেগোনা কয়েকটি দেশ আবিষ্কার করেছে, এর মধ্যে বাংলাদেশ একটি। এজন্য আমি খুব গর্বিত। কাকন নাগ ও নাজনিন সুলতানার এই সাফল্যে আমিসহ সারা বাংলাদেশ গর্বিত,’ বলেন হাছান মাহমুদ।

বৈঠকে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ, তথ্যসচিব খাজা মিয়া, সাবেক মুখ্যসচিব ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই অ‌্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট আবদুল করিম, গ্লোব বায়োটেকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্যাকসিন আবিষ্কারক দলের প্রধান কাকন নাগ, ভ্যাকসিন আবিষ্কারক দলের বিজ্ঞানী নাজনীন সুলতানা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গভ্যাক্সের সর্বশেষ অবস্থা জানতে চাইলে গ্লোব বায়োটেকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্যাকসিন আবিষ্কারক দলের প্রধান কাকন নাগ বলেন, প্রায় তিন সপ্তাহ হয়েছে আমরা বিএমআরসিতে জমা দিয়েছি এথিক্যাল ক্লিয়ারেন্সের জন্য। এর আগে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যে উচ্চ পর্যায়ের টিম গঠন করেছিল সায়েন্টিফিক রিভিউ কমিটি, ওনারা একাধিকবার আমাদের ডাটা অ্যানালাইসিস করেছেন, অডিট করে সবকিছু সন্তোষজনক পাওয়া সাপেক্ষে আমাদের জিএমপি (গুড ম্যানুফ্যাকচারিং পলিসি) লাইসেন্স দিয়েছেন এই ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য, উৎপাদন করার জন্য। তার মানে হচ্ছে টেকনোলজিক্যালি ও সাইন্টিফিক্যালি এটা কার্যকরি এবং নিরাপদ এইটুকু প্রমাণ আমরা পেয়েছি, সেই স্বীকৃতি পেয়ে গেছি সরকারের কাছ থেকে।

‘এখন যেটুকু দরকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের শুরু হবে এজন্য ভলান্টিয়ার আছেন, এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করলে ভলান্টিয়ারদের ম্যানেজমেন্ট কী রকম হবে, এজন্য একটি পারমিশন দরকার বিএমআরসির এথিক্যাল রিভিউ কমিটির কাছ থেকে। সেটা এখনও হয়নি। বরং এটি মডার্নার ক্ষেত্রে মাত্র চারদিন লেগেছিল, আমাদের এখানে কিন্তু তিন সপ্তাহ হতে চলল, আমরা এখন পর্যন্ত কোনো রেসপন্স জানি না কখন আপডেট বা অনুমোদন পাবো। এটা পাওয়ার পরপরই আমরা ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করতে পারবো,’- বলেন কাকন নাগ।

তিনি বলেন, ভ্যাকসিনটি সর্বাধুনিক পদ্ধতিতে তৈরি। এখন আমরা শুধু কপি ড্রাগ তৈরি করি। এটা আমাদের জন্য গৌরবের বিষয় যে এই প্রথম আমরা মৌলিক গবেষণার মাধ্যমে মৌলিক ডিজাইনের ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছি। এটি কোনো কপি ড্রাগ নয়। এটি পুরো দেশবাসীর গর্বের ব্যাপার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর