• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
ব্রেইন টিউমার আক্রান্ত তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী টুম্পাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন! ফেসবুককে রোহিঙ্গাবিরোধী তথ্য দিতে নির্দেশ উখিয়ায় পাহাড়ের মাটি পাচারকালে ডাম্পার সহ আটক ১ বিজিবির অভিযানে সাড়ে ৪ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা উদ্ধার রাজধানীর প্রতিটি খাল সংরক্ষণ করা হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী করোনায় আবারও বাড়ল শনাক্ত ও মৃত্যু কক্সবাজারে ২১ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা নিয়ে আটক ৫ রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক তাদের অবশ্যই ফিরে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের জন্য ১৫৮ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র উখিয়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাঃ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

চকরিয়ায় লবণ মাঠ ও চিংড়ি জমি দখলে হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় আদালতের আদেশ জারি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১
চকরিয়ায় লবণ মাঠ ও চিংড়ি জমি দখলে হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় আদালতের আদেশ জারি

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের মেধাকচ্ছপিয়া মৌজার ছড়াঘোনায় ১১৪ পরিবারের মালিকানাধীন ১২৫ একর লবণ মাঠ ও চিংড়িজমি দখলে নিতে হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় দখলবাজপক্ষের বিরুদ্ধে অবশেষে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কক্সবাজারে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারা (বারিত) আদেশ জারী করা হয়েছে।
গত ১৩ জানুয়ারী অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কক্সবাজার মোহাং শাহজান আলী স্বাক্ষরিত (স্মারক নং ১৬৭/২০২১) এক আদেশনামায় এ তথ্য জানা গেছে। মামলার বাদী ১১৪ পরিবারের পক্ষে জাকেরা বেগম। মামলা নং ১৮২/২০২১। আদালত বিরোধীয় জায়গার বিষয়ে সরজমিন তদন্ত পুর্বক মতামত দেয়ার জন্য চকরিয়া থানার ওসি ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) চকরিয়াকে নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে ভুক্তভোগী অসহায় জমি মালিক ১১৪টি পরিবার দখলবাজ চক্রের কবল থেকে তাদের সম্পদ উদ্ধারে জড়িত দখলবাজদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণে স্বরাস্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামাল এমপির জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
অপরদিকে লবণ মাঠ ও চিংড়িজমির উল্লেখিত জায়গা দখলে নিতে এদিকে গত ৩১ ডিসেম্বর ঘেরে হামলা ও লুটপাট চালায় দখলবাজ চক্রের লোকজন। এ ঘটনায় চকরিয়া থানায় ৯ জনের নাম উলে­খ্য ছাড়াও আরো ১৫-২০জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে একটি এজাহার দিয়েছেন জমি মালিকপক্ষের অংশিদার ১১৪ পরিবারের প্রতিনিধি জাকেরা বেগম (৪৫)।
অন্যদিকে একই ঘটনায় চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আরও একটি মামলা (নং ১৮/২১) দায়ের করা হয়েছে ভুক্তভোগী ১৪৪ পরিবারের পক্ষে। মামলার এজাহারনামীয় আসামিরা হলেন বাঁশখালী পুইছড়ি এলাকার সুলতান গণি প্রকাশ লেদু মিয়া, মোহাম্মদ লেদু, চকরিয়া পৌরসভার দক্ষিন কাহারিয়াঘোনার জমির উদ্দিন, চিরিঙ্গা ইউনিয়নের বাসিন্দা জালাল উদ্দিন, ছরওয়ার আলম, মো.ছুট্টু, জাফর আলম প্রকাশ সিআইপি জাফর, ডুলাহাজারা ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের মিজানুর রহমান ও খুটাখালী মেধাকচ্ছপিয়ার খলিলুর রহমান।
জমি মালিকপক্ষের লোকজন জানান, বাদির এজাহারটি আমলে নিয়ে চকরিয়া থানার ওসি তদন্তের জন্য থানার এসআই মো.আবু সায়েমকে নির্দেশ দিয়েছেন এবং তিনি ঘটনাস্থলও পরিদর্শন করেছেন। ওইসময় তদন্ত কর্মকর্তা উলে­খিত লবণমাঠ ও চিংড়িজমি স্থানীয় ১১৪টি পরিবারের মালিকানাধীন খতিয়ানভুক্ত সম্পদ তা স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জেনেছেন।
জমি মালিক পক্ষের অংশিদাররা জানায়, খুটাখালী ইউনিয়নের মেধাকচ্ছপিয়া মৌজার বিএস ৭৬ খতিয়ানের ১২৫ একর ১১ শতক চিংড়িজমি রয়েছে স্থানীয় ১১৪ পরিবারের। এসব জমি তাঁরা ক্রয়সুত্রে মালিকানাধীন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে এসব পরিবার জমি গুলোর বিপরীতে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রতিবছর যথারীতি খাজনাও (রাজস্ব) পরিশোধ করে বৈধভাবে ভোগদখল করে আসছেন। ইতোমধ্যে সকলের নামে আলাদা জমাভাগ খতিয়ানও সৃজন হয়েছে উপজেলা ভুমি কর্মকর্তার দপ্তর থেকে।
মামলার বাদি জাকেরা বেগমসহ মালিকপক্ষের লোকজন অভিযোগ তুলেছেন, তাঁরা উলে­খিত লবণমাঠ ও চিংড়িজমি শান্তিপুর্ণভাবে ভোগদখল করে আসছিলেন ১১৪টি পরিবার। এরপর অভিযুক্ত ভুমিদস্যু চক্রের সদস্যরা আদালতের ১৪৪ ধারা আদেশ জারি থাকলেও পেশিশক্তির দাপট দেখিয়ে এসব জমি অবৈধ ভাবে দখলে নিতে ফের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। এই অবস্থায় ভুক্তভোগী জমি মালিকরা অভিযুক্ত ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।##


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর