• রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
ব্রেইন টিউমার আক্রান্ত তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী টুম্পাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন! ফেসবুককে রোহিঙ্গাবিরোধী তথ্য দিতে নির্দেশ উখিয়ায় পাহাড়ের মাটি পাচারকালে ডাম্পার সহ আটক ১ বিজিবির অভিযানে সাড়ে ৪ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা উদ্ধার রাজধানীর প্রতিটি খাল সংরক্ষণ করা হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী করোনায় আবারও বাড়ল শনাক্ত ও মৃত্যু কক্সবাজারে ২১ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা নিয়ে আটক ৫ রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক তাদের অবশ্যই ফিরে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের জন্য ১৫৮ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র উখিয়া প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাঃ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব সেবা না থাকায় এক গর্ভবতী মায়ের মৃত্যু

হুমায়ূন রশিদ
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২০
প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনে প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব সেবা না থাকায় এক গর্ভবতী মায়ের মৃত্যু

টেকনাফের মূল ভূখন্ড হতে বিচ্ছিন্ন জনপদ সাগরের বুকে অবস্থিত পর্যটনের রাণী খ্যাত প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টি প্রসব চিকিৎসা সেবা না থাকায় এক গর্ভবর্তী মায়ের করুণ মৃত্যু ঘটেছে। দ্বীপবাসী এখানে হাসপাতালে যাবতীয় কার্য্যক্রমের পাশাপাশি ডেলিভারী ইউনিট চালুর জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।
জানা যায়, ৮ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল ৭টারদিকে প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনের গুচ্ছগ্রামের আব্দুল শুক্কুরের স্ত্রী কুলসুমা (২২) এর প্রসব যন্ত্রণা শুরু হলে ডেলিভারীর জন্য সাগর পথে টেকনাফ নেওয়ার পথেই নৌযানে মৃত্যুবরণ করেন। চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত অপমৃত্যুর ঘটনায় দ্বীপবাসীর মনে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
স্থানীয় জনসাধারণের অভিযোগ,এই দ্বীপে একটি অত্যাধুনিকমানের হাসপাতাল থাকলেও পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা সহজে মিলেনা। এছাড়া ডেলিভারীর জন্য প্রাতিষ্ঠানিক প্রসব সেবা ইউনিট না থাকায় এই দ্বীপের মানুষকে সাগর বেয়ে টেকনাফ যেতে হয়। এই আসা-যাওয়ার পথেই অনেক মাকে অকালেই প্রাণ হারাতে হয়। তাই এই দ্বীপে পর্যটক ও স্থানীয় বাসিন্দাদের যাবতীয় চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার জন্য হাসপাতালের যাবতীয় কার্য্যক্রমের পাশাপাশি ডেলিভারী ইউনিট চালুর দাবী জানিয়েছেন।
এই ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান,এই দ্বীপের বাসিন্দাদের সরকারী স্বাস্থ্য সেবার জন্য হাসপাতাল এবং ডাক্তার থাকলেও সেবারমান অপ্রতুল। এছাড়া ডেলিভারী ইউনিট না থাকায় প্রায় সময় গর্ভবতী মায়েদের অপমৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। তা দ্রæত সমাধানের জন্য সরকারের উর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এই ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, এই ঘটনাটি আমরা অবগত হয়েছি। বিষয়টি উর্ধ্বতন মহলকে অবহিত করা হয়েছে। শীঘ্রই এই দ্বীপে ডেলিভাবী সেবাসহ যাবতীয় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
উল্লেখ্য,প্রতিবছরই শাহপরীরদ্বীপ এবং সেন্টমার্টিনের গর্ভবতী মায়েরা প্রসব সেবা না পেয়ে অকালে মৃত্যুবরণ করছে। তাই এসব দূরান্তের গর্ভবতী মায়েদের নিরাপদ প্রসব সেবা নিশ্চিত করার জন্য ডেলিভারী ইউনিট চালুর দাবী উঠেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর