• শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
উখিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আর্মড পুলিশের এএসআই নিহত আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সবসময়ই অত্যন্ত শক্তিশালী ও গুরুত্বপূর্ণ দল -কৃষিমন্ত্রী জয়পুরহাটে দুই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তির কারাদণ্ড মৌলভীবাজারে শ্রীমঙ্গলে রেলের জমি উদ্ধারে বাধা, রেলের এক্সাভেটরে দুর্বৃত্তের আগুন শেষ হলো সংসদের চতুর্দশ অধিবেশন দেশে করোনায় আরও ৫১ জনের মৃত্যু ইভ্যালির সিইও রাসেল গ্রেপ্তার প্রবাস থেকে স্বামী আসার খবরে প্রেমিকের হাত ধরে পালালো এক সন্তানের জননী কোটবাজারে চাকবৈঠার ইব্রাহিম বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ র‍্যাবের হাতে আটক রত্নাপালং ইউপি নির্বাচন : চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে ইমাম হোসেন

যে গোনাহ আল্লাহ কখনো ক্ষমা করবেন না

ধর্ম ডেস্ক
আপডেট সময় : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
যে গোনাহ আল্লাহ কখনো ক্ষমা করবেন না

আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরিক করা সবচেয়ে বড় গোনাহ। আল্লাহ তাআলা শিরকের গোনাহ কখনো ক্ষমা করবেন না। সরাসরি আল্লাহর সঙ্গে কাউকে তুলনা করা কিংবা আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো ইবাদত করাই শিরক। এটাকে শিরকে আকবার বলা হয়। এটি সবচেয়ে বড় কবিরাহ গোনাহ। এ গোনাহের ধরন হলো এমন-
‘যে কোনো প্রকারের ইবাদতকে আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো বা কিছুর জন্য নিবেদন করা। যেমন- আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো উদ্দেশ্যে বা নামে প্রাণী জবাই করা; প্রভু হিসেবে কারো ইবাদত করা।

আবার যদি কোনো ব্যক্তি ইবাদতের কিছু অংশে আল্লাহ ছাড়া অন্যের উদ্দেশ্যে করে থাকে তাও শিরক। আল্লাহ তাআলা শিরকে গোনাহের পরিণতি সম্পর্কে ঘোষণা করেন-
إِنَّ اللّهَ لاَ يَغْفِرُ أَن يُشْرَكَ بِهِ وَيَغْفِرُ مَا دُونَ ذَلِكَ لِمَن يَشَاء وَمَن يُشْرِكْ بِاللّهِ فَقَدِ افْتَرَى إِثْمًا عَظِيمًا
‘নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাআলা তার সঙ্গে শিরক করাকে ক্ষমা করবেন না। তবে শিরক ছাড়া অন্যান্য গোনাহ যাকে ইচ্ছা ক্ষমা করবেন। আর যে লোক আল্লাহর সঙ্গে অংশীদার সাব্যস্ত করে; সে যেন অপবাদ আরোপ করে।’ (সুরা নিসা : আয়াত ৪৮)

আল্লাহ তাআলা শিরক থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত। তাঁর কোনো শরিক নেই। তিনি এক ও একক। হাদিসে পাকে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মতের উদ্দেশ্যে ঘোষণা করেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, আল্লাহ তাআলা বলেন-
‘আমি অংশিদারিত্ব (শিরক) থেকে সম্পূর্ণ মুক্ত। যে ব্যক্তি কোনো কাজ করে আর ওই কাজে আমার সঙ্গে অন্য কাউকে শরিক করে, আমি সেই ব্যক্তিকে তার শিরকে ছেড়ে দেই।’ (মুসলিম)

মনে রাখতে হবে
আল্লাহ তাআলা ৭ শ্রেণির মানুষকে ধ্বংস করে দেবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্বনবি। তার মধ্যে প্রথম শ্রেণির মানুষ হলো তারা- যারা আল্লাহর সঙ্গে অন্য কাউকে শরিক করে।
তাছাড়া আল্লাহ তাআলা বান্দার সব গোনাহ ক্ষমা করলেও শিরকের গোনাহ ক্ষমা করবেন না বলে কুরআনুল কারিমে সুস্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছেন।

তাই মুমিন মুসলমানের উচিত, সব সময় শিরক থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখা। শিরকমুক্ত ঈমানের অধিকারী হওয়ার চেষ্টা করা। শিরক বর্জন করে পরিচ্ছন্ন ঈমানের অধিকারী হওয়া এবং আল্লাহর ধ্বংস থেকে বেঁচে থাকা। শিরক থেকে বাঁচতে অবসরে বেশি বেশি এভাবে বলা-
اَللهُ… اللهُ رَبِّىْ لَا اُشْرِكُ بِهِ شَيْئًا
উচ্চারণ : ‘আল্লাহু… আল্লাহু রাব্বি; লা উশরিকু বিহি শাইআ।’
অর্থ : ‘হে আল্লাহ!… আল্লাহ! তুমিই আমার প্রভু! আমি তোমার সঙ্গে কোনো কিছুকেই শরিক করি না।’

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে শিরকমুক্ত ঈমানের অধিকারী হওয়ার তাওফিক দান করুন। শিরক থেকে ঈমানকে হেফাজত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর