• বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রামুর গোয়ালিয়া পালংয়ে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি জবরদখলের চেষ্টা, চরম উত্তেজনা

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : সোমবার, ১৬ আগস্ট, ২০২১
IMG 20210816 WA0022

 

রামু উপজেলার খুনিয়া পালং ইউনিয়নের গোয়ালিয়া পালং গ্রামে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি জবর দখলের অপ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল সোমবার দুই শতাধিক ভাড়াটিয়া লোক জমিতে চাষাবাদ ও চারা রোপনের চেষ্টার ঘটনায় দু’পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয় । খবর পেয়ে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার ভূমি ও থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

মৃত মোঃ ওসমান গনি সিকদারের ছেলে ও মামলার বাদী মোহাম্মদ শাহাদুজ্জামান বাহাদুর অভিযোগ করে বলেন রামুর দক্ষিণ রাজারকুল গ্রামের মৃত নজির আহমদ সিকদারের পুত্র মোহাম্মদ হানিফ , মোহাম্মদ হোসাইন ও জয়নাল আবেদীনের নেতৃত্বে প্রায় শতাধিক ভাড়াটিয়া লোক দা লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আদালতে বিচারাধীন বিরোধীয় জমি জবরদখল করতে আসে।
গ্রামবাসীরা জানান , হানিফ গং জায়গা জবরদখল করতে পাওয়ার টিলার ও ধানের চারা সহ মিনিবাস নিয়ে লোক এনে জমায়েতে করে। এ ঘটনা চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে চরম উত্তেজনা সহ এক ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। একাধিক বার জমিতে প্রবেশ করে চাষাবাদের চেষ্টা করলেও স্হানীয় জনগণের বাধার মুখে তা ব্যর্থ হয়।
এদিকে খবর পেয়ে দুপুরে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা, সহকারী কমিশনার ভুমি ও থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য আহবান জানান ।
পরে দু পক্ষকে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র নিয়ে আগামী ১৮ আগষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপস্থিত হওয়ার জন্য বলা হয়।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায় , খুনিয়া পালং ইউনিয়নের গোয়ালিয়া পালংয়ের সিকদার পাড়া গ্রামের শাহেদুজ্জামানের সাথে রামুর পূর্ব রাজার কূল গ্রামের মোহাম্মদ হানিফ গং মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আছিল। এ ঘটনায় গত ৯ আগষ্ট শাহেদুজ্জামান বাদী হয়ে ফৌজদারি কার্যবিধি ১৪৪ ধারা চেয়ে কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর এমআর ১৫২৯/২০২১ ইং। মৌজা গোয়ালিয়া। আরএস ৩৩৫ নম্বর খতিয়ানের অান্দরে অারএস ৩৩৬,৩৩৭ নম্বর খতিয়ানের আরএস ৩০১, ৩০২ ও ৩০৩ নম্বর দাগের তুলনামূলক বিএস ৩৩৫ দাগের আন্দর । জমির পরিমাণ ৩.১১ একর।

এতে বিবাদী করা হয় মোহাম্মদ হানিফ সহ ১১ জনকে। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে এনে সরজমিন তদন্ত পূর্বক মতামত রিপোর্ট প্রেরণ করার জন্য সহকারী কমিশনার ভূমি কে বলা হয় । একই সাথে বিরোধীয় জায়গায় শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য রামু থানার অফিসার ইনচার্জ কে আদেশ দেন। যার স্বারক নম্বর ১৬০৪/২০২১।

জানা গেছে , রামু থানার অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে হিমছড়ি পুলিশ ফাঁড়ি আইসি এসআই মাসুদ ফয়সাল গত ১১ আগষ্ট বিরোধীয় জায়গায় শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখা সহ অনুপ্রবেশ না করার জন্য বিবাদী হানিফ গং নোটিশ প্রদান করেন ।

বাদী শাহেদুজ্জামান বাহাদুর অভিযোগ করে বলেন , বিবাদী গং আদালতের আদেশ অমান্য করে ভাড়াটিয়া লাঠিয়াল বাহিনী এনে বিরোধীয় জমি জবরদখল দখল সহ এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেন। তিনি দাবি করেন পুরো জমির বৈধ মালিক আমাদের পিতা মরহুম ওসমান গনি সিকদার।

পৈত্রিক জমি জবরদখল কারীর কবল থেকে রক্ষা ও জীবনের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সুপার সহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর