বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২১, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন

কক্সবাজার বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ বাণিজ্য ও দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়: অনার্স চতুর্থ বর্ষের মৌখিক পরীক্ষা শুরু রবিবার

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা দাবি করে উদ্যোক্তা মোহাম্মদ মুজিবুর রহমানসহ প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের বাদ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে সালাউদ্দিন আহমেদ নামের আরেক সদস্যের বিরুদ্ধে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়টি দখলেরও অপচেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এই সদস্য চলতি বছরের ২০ মে পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন। পরে তাকে মতামতের ভিত্তিতে অব্যাহতি দেয়া হয় চেয়ারম্যানের পদ থেকে।

আজ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে (ক্র্যাব) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয় দখলের এই অভিযোগ তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে বোর্ড অব ট্রাস্টিজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মাহবুবা সুলতানা লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২০১৩ সালের পর থেকে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে ব্যর্থ হওয়ায় সংখ্যাগরিষ্ঠ ট্রাস্টি বোর্ড সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে সালাউদ্দিন আহমেদকে চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। এরপর থেকেই তিনি বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা দাবি করে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করেন।

এমনকি প্রতিষ্ঠাতার উদ্যোক্তা মোহাম্মদ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাও দায়ের করেন তিনি।
ট্রাস্টি বোর্ডের সব সদস্যদের বাদ দিয়ে সম্পূর্ণ একটি ট্রাস্ট রেজিস্ট্রেশন করে নিজেকে প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় দখলের অপচেষ্টা করছেন। তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা নির্ধারণের জন্য গত জুনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদনও করেছেন। যা একান্তই হাস্যকর ও ষড়যন্ত্রমূলক।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদনের কোনো দলিলপত্রে সালাহউদ্দিন আহমদের নাম না থাকলেও তিনি বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা দাবি করছেন। যা রীতিমতো অন্যায়।

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রমে সালাহউদ্দিন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে নিয়োগ বাণিজ্য, ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যদের ভয়-ভীতি দেখানোসহ আমার নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ইউজিসিতে অভিযোগ দেয়া হলে এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই তদন্ত কাজও চলমান রয়েছে।

সালাহউদ্দিন আহমদের হাত থেকে বিশ্ববিদ্যালয় বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন উদ্যোক্তা ও ট্রাস্টি বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য আব্দুস সবুর, আব্দুল মাবুদসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।


এ জাতীয় সংবাদ