বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই বোনকে হত্যা করেন ভাই!

ডেস্ক রিপোর্ট
আপডেট বুধবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০২০
প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই বোনকে হত্যা করেন ভাই!

 

সারাদেশঃ (১) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজে’লার গোয়ালগর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে রফিজা খাতুন হ’’ত্যা মা’মলা নতুন মোড় নিয়েছে। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর হাতে তিন আ’সামি গ্রে’প্তারের পর ঘটনার সঙ্গে নি’হত রফিজা খাতুনের ভাই ও মা’মলার বা’দী মুছা মিয়ার সম্পৃক্ততা পাওয়া যায় বলে দাবি করা হয়েছে। মুছার ভাই সোহাগসহ ওই তিন আ’সামি আ’দালতে জ’বানব’ন্দিও দিবেন বলে জানিয়েছে পিবিআই।

(২) পিবিআই’র ব্রাহ্মণবাড়িয়া ইউনিটের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গ্রে’প্তারকৃতদের জি’জ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে তিনি জানান, প্রতিপক্ষকে ফাঁ’সাতে স্বামী পরিত্যক্তা বোনকে হ’’ত্যার পরিকল্পনা করেন মা’মলার বা’দী মুছা মিয়া। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় তিনজনকে গ্রে’প্তারের পর তাদেরকে জি’জ্ঞাসাবাদের ও পরবর্তী ত’দন্তে মুছার সম্পৃক্ত থাকার বি’ষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। মুছাকে গ্রে’প্তারে অ’ভিযান চা’লানো হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

(৩) ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর রামপুর গ্রামের মৃ’ত দরবেশ মিয়ার মেয়ে ও স্বামী পরিত্যক্তা রফিজা খাতুন খু’ন হন। এ ঘটনায় রফিজা খাতুনের আপন ভাই মুছা মিয়া বা’দী হয়ে প্রতিপক্ষের ৫৭ জনের বি’রুদ্ধে ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি নাসিরনগর থানায় হ’’ত্যা মা’মলা দা’য়ের করেন। সম্প্রতি পিবিআই মা’মলাটির ত’দন্তের দায়িত্ব পায়। এরই মধ্যে রামপুর গ্রামের মৃ’ত দরবেশ মিয়ার ছেলে ও রফিজার আরেক ভাই সোহাগ মিয়া (২৫), সিরাজ মিয়ার ছেলে মো. আক্কাছ মিয়া (৪৫) ও মৃ’ত সাদত মিয়ার ছেলে পরশ মিয়া (৪৫) কে গ্রে’প্তার করে। পিবিআই’র জি’জ্ঞাসাবাদে মুছা ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী বলে গ্রে’প্তারকৃতরা উল্লেখ করেন।

(৪) পুলিশ সুপার শাখাওয়াত হোসেন গণমাধ্যম কর্মীদেরকে জানান, রামপুর গ্রামের দরবেশ মিয়ার ছেলে মুছা মিয়ার সঙ্গে একই গ্রামের বাসিন্দা আবু কালামের গোষ্ঠীগত দ্ব’ন্দ্বসহ নানা বি’ষয় নিয়ে বি’রোধ চলছিল। সর্বশেষ গ্রামের একটি খাস জমি দ’খল নিয়ে দুইজনের মধ্যে বি’রোধ চ’রম আকার ধারণ করে। ওই জমি নিয়ে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর উভ’য় পক্ষের লোকজনদের মধ্যে সং’ঘর্ষ হয়। সেই সং’ঘর্ষে আবু কালামের একজন সমর্থক নি’হত হন। এ খবর জানার পর মুছা মিয়া প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে পরিকল্পনা করে কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে বোনকে নিজ বাড়িতেই ধা’রালো অ’স্ত্র দিয়ে হ’’ত্যা করেন।


এ জাতীয় সংবাদ