• বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ভাসমান লাশ রত্নাপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে রেকর্ড, টানা ৬ষ্ট বার সভাপতি আছহাব উদ্দিন মেম্বার উখিয়ায় সামাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ভারত থেকে অবৈধপথে বাংলাদেশে আসছে রোহিঙ্গারা উখিয়ায় পাহাড় নিধন ও বনাঞ্চল উজাড়, শতাধিক বহুতল ভবন নির্মাণ চলছে আওয়ামীলীগের মাঠজরীপে আছহাব উদ্দিন মেম্বার আবারো জনপ্রিয়তার শীর্ষে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হাসপাতাল নয়, যেনো এক একটি রোহিঙ্গা প্রজনন কেন্দ্র। উখিয়ায় স্পেশাল সার্ভিসের ধাক্কায় টমটম বিলে আহত-৪ উখিয়া করইবনিয়ার নাছির ৩ কোটি টাকার ইয়াবা নিয়ে বিজিবির হাতে আটক একজন শিক্ষিত মায়ে-ই পারে একটি শিক্ষিত জাতি উপহার দিতে-হামিদুল হক চৌধুরী

উখিয়ায় ইয়াবা পাচারের মূলহোতা রোহিঙ্গা, ফের আটক-৩

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : রবিবার, ৯ মে, ২০২১
ইয়াবা

এম ফেরদৌস (উখিয়া কক্সবাজার)

কক্সবাজার জেলার রামু থানার খুনিয়াপালং হিমছড়ি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৯ হাজার,৭৮০ পিস ইয়াবাসহ তিন রোহিঙ্গা মাদক কারবারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৫।

আটককৃত হলেন,থাইংখালী ১৯ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কাদির হোসেনের ছেলে আজাহার হোসেন(২৮), তার সহযোগি একই ক্যাম্পের মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে হামিদ হোসেন ও বদিরনারের ছেলে সৈয়দ হোসেন (৩৫)।গ্রেফতারকৃত আসামীদের পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার জেলার রামু থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

শনিবার (৮ মে) রাত ১০ টার দিকে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‍্যাব-১৫) হিমছড়ি এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করেন।

এক প্রেসবিজ্ঞপ্তির মাধ্যামে কক্সবাজার র‍্যাবের সহকারী পরিচালক ( মিডিয়া অফিসার) আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক কারবারী কক্সবাজার জেলার রামু থানাধীন খুনিয়াপালং হিমছড়ি ইসমাইল স্টোরের সামনে প্রধান সড়কের উপর মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৫ এর একটি চৌকশ আভিযানিক দল উপরোক্ত স্থানে পৌঁছালে র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে কতিপয় মাদক কারবারী পালিয়ে যাওয়ার সন্দেহজনকভাবে আটক করা হয়। পরবর্তী উপস্থিত স্বাক্ষীদের সম্মুখে ধৃত আসামীদের হাতে থাকা শপিং ব্যাগ তল্লাশী করে মোট নয় হাজার সাতশত আশি পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামীরা স্বীকার করে যে, তারা দীর্ঘদিন যাবত টেকনাফের সীমান্তবর্তী এলাকা হতে ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্রয় করে আসছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর