• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৯:৫০ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম
রামু প্রেসক্লাবের নবগঠিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি সভা কক্সবাজারে জব্দকৃত ৩শত কোটি ৯৬ লাখ টাকার মাদক ধ্বংশ উখিয়ায় শেড-এর উদ্যোগে শিশু উৎসব উদযাপন কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ভাসমান লাশ রত্নাপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে রেকর্ড, টানা ৬ষ্ট বার সভাপতি আছহাব উদ্দিন মেম্বার উখিয়ায় সামাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ভারত থেকে অবৈধপথে বাংলাদেশে আসছে রোহিঙ্গারা উখিয়ায় পাহাড় নিধন ও বনাঞ্চল উজাড়, শতাধিক বহুতল ভবন নির্মাণ চলছে আওয়ামীলীগের মাঠজরীপে আছহাব উদ্দিন মেম্বার আবারো জনপ্রিয়তার শীর্ষে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হাসপাতাল নয়, যেনো এক একটি রোহিঙ্গা প্রজনন কেন্দ্র।

খুরুশকুলে গুলিবর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : সোমবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২২
কক্সবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রকৃত ওয়ারিশদের উপর গুলিবর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে। রাতের আঁধারে নিজেরাই নিজেদের পরিত্যক্ত একটি বাড়ির আংশিক পুঁড়িয়ে দিয়ে ভুয়া মামলা সাজানোর অজুহাত সৃষ্টি করেছে ভূমিদস্যু সন্ত্রাসীদের ওই চক্র। এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য গুলিবর্ষণকারীরাই উল্টো মিথ্যা মামলা সাজাতে এ অপচেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
প্রতিবেশীরা বলছেন, আগুন লাগার কোন ঘটনা তাদের জানা নেই। এ ধরনের কথা সঠিক নয় বলেও দাবী করেন তারা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, যে বাড়িটির সামান্য একটি অংশ পুঁড়িয়ে দিয়েছে বলে থানা পুলিশকে অবগত করেছে আসলে সেই বাড়িটি কেউ পুঁড়িয়ে দেয়নি। এটি শুধুমাত্র পূর্বের ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে পরিকল্পিতভাবে পুঁড়িয়ে দেয়ার নাটক সাজিয়েছে তারা। সেই বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে মানুষ বসবাস করে না। সেখানে দিনে-রাতে জুয়া ও মদের আড্ডা চলতো।

মূলত: গত ২২ এপ্রিল শুক্রবার খুরুশকুল কুলিয়াপাড়া এলাকার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আবু সুফিয়ানের নেতৃত্বে মনজুর, সাখওয়াত হোসেন বাবু, রাশেদুল ইসলাম ও শামসুল আলমসহ আরও বেশ কয়েকজন বেপরোয়া গুলি চালায়। এতে চোখে গুলি লেগে গুরুতর আহত হয় ইফতাদুল হক। এছাড়া মমতাজ আহমদ, ইসলাম, ওমর ফারুক, কায়ছার, রুবেল, শিশু হৃদয়, আনিসুর রহমান, মনজুর মোরশেদ ও বেলালসহ মোট ১৪ জন গুলিবিদ্ধ হয়। যাদের কয়েকজনের অবস্থা এখনো আশংকাজনক। এ ঘটনার পর ২৪ এপ্রিল হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন আনিসুর রহমান ধলু।

যার প্রেক্ষিতে হামলায় নেতৃত্বদানকারী আবু সুফিয়ান ও শামসুকে পুলিশ আটক করে। তারা বর্তমান কক্সবাজার কারাগারে বন্দী রয়েছে।

অন্যদিকে ঘটনার সাথে জড়িত মামলার বাকি আসামীদের গ্রেফতারে প্রশাসনের আন্তরিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর