২০ মিনিট ঝুলে ছিল বোন, ভাইয়ের চিৎকার শুনেও এগিয়ে যায়নি কেউ! | Daily Cox News
  • শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫১ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

২০ মিনিট ঝুলে ছিল বোন, ভাইয়ের চিৎকার শুনেও এগিয়ে যায়নি কেউ!

ডেস্ক রিপোর্ট
আপডেট সময় : শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০
২০ মিনিট ঝুলে ছিল বোন, ভাইয়ের চিৎকার শুনেও এগিয়ে যায়নি কেউ!

ভাই শাহীনের চিৎকার ও ভেতর থেকে গেট খুলে দেওয়ার পর অনেকেই হাজির হলেও এগিয়ে যায়নি কেউ ঝু’লে থাকা ঈশিতার কাছে। ২০ মিনিট পর বাবা দোকান থেকে এসে মে’য়েকে উ’দ্ধার করে হা’সপাতালে নেন। হা’সপাতালে পৌঁছানোর পরও কিছুক্ষণ বেঁ’চে ছিল ঈশিতা। তারপর সবশেষ।

ঈশিতা পাঁচ বছরের ছোট ভাইকে ফাঁ’সি ফাঁ’সি খেলা শুরু করার আগে বলেছিল, ‘ম্যাজিক করবো দেখবি, আমার কিছু হলে পানি ছিটাবি।’ সাত মিনিট আগেই বান্ধবী মদিনাকে বলেছিল, ‘স্কুলে যাব জানুয়ারিতে।’ নাচোল এশিয়ান স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছা’ত্রী ছিল নি’হত মোনুয়ারা খাতুন ঈশিতা।

বাড়িতে তখন বিদ্যুৎ না থাকায় টিভি দেখা ব’ন্ধ হয়ে যায়। এ সময় ভাই-বোন মিলে খেলছিল ফাঁ’সি ফাঁ’সি খেলা। আর খেলতে গিয়ে ফাঁ’সি লেগে মা’রা যায় ঈশিতা। গত ২৮ অক্টোবর এই ম’র্মান্তিক মৃ’ত্যুর ঘটনা ঘটে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে। সনি আট চ্যানেলে সি’আইডি পর্ব দেখে অনুপ্রা’ণিত হয়ে ভাই-বোন খেলতে গিয়ে গ’লায় ফাঁ’স লেগে মা’রা যায় শি’শু ঈশিতা।

জানালার শিকে ও’ড়নার দুই মা’থা বাঁ’ধা ছিল, মধ্যে ঝু’লানো ও’ড়নায় গ’লা আ’টকা ছিল ঈশিতার। খাটের ও’পর বালিশে পাঁ ছিল তার। আর ওই বালিশ পড়ে গেলে দুই পাঁ ঝু’লে যায়। মু’খ দিয়ে র’ক্ত বের হলে চি’ৎকার ও ভিতর থেকে সাহিন মেইন গেটে খুলে দেয় ছোট ভাই শাহীন। পাশের বাড়ির লোকজন সেই ঘরে পৌঁছে। কিন্তু অনেকেই হাজির হলেও এগিয়ে যায়নি কেউ ঝুলে থাকা ঈশিতার কাছে। বাড়ির মেইন গেটের পকেট গেটটি ছিল বাইরে থেকে আ’টকানো। ভিতর দিক দিয়ে লাগানো ছিল গেটের ছিটকিনি।

শিবগঞ্জ পৌর এলাকার রসুলপুর গ্রামের মোকসিদুর রহমান মনির দুই শি’শু স’ন্তান ঈশিতা (৯) ও শাহীন (৫)। তাদের মা শাহনাজ সুলতানা তালাক প্রাপ্তা। প্রতিদিনের মত বুধবার সকালে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শিবগঞ্জ বাজারে ও’ষুধের দোকানে যান তাদের বাবা মোকসিদুর রহমান মনির। দুপুরে ১২টায় তার ফোনে খবর আসে ছে’লে-মে’য়ে ফাঁ’সি ফাঁ’সি খে’লতে গিয়ে গ’লায় ফাঁ’স লেগে মা’রা গেছে মে’য়ে ঈশিতা। খবর পেয়ে ছুটে এসে হা’সপাতালে নিয়ে যান, কিছুক্ষন পর সব শেষ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ