ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, সারারাত ধর্ষককে গাছে বেধে রাখলেন এলাকাবাসী | Daily Cox News
  • বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:৪০ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, সারারাত ধর্ষককে গাছে বেধে রাখলেন এলাকাবাসী

ডেস্ক রিপোর্ট
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩ নভেম্বর, ২০২০
ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, সারারাত ধর্ষককে গাছে বেধে রাখলেন এলাকাবাসী

পরিচয় গোপন করে মোবাইলে অষ্টম শ্রেণির একছাত্রীর সাথে পাতেন প্রেমের ফাঁদ পাতেন পার্শ্ববর্তী এলাকার খলিলুর রহমান। সোমবার রাতে ওই ছাত্রীর ঘরে ঢুকে ধ”ণের সময় তাকে আ’টক করে প্রতিবেশীরা। হাতেনাতে আ’টক করে খলিলকে সারারাত গাছে বেঁ’ধে রাখে তারা। খবর পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আ’টক করে র‍্যা’ব ও পুলিশ। জামালপুর সদর উপজে’লার রশিদপুর ইউনিয়নের সেঙ্গুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই ছাত্রীর পরিবার ও স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, জামালপুর সদর উপজে’লার রশিদপুর ইউনিয়নের সেঙ্গুয়া গ্রামে ধ”ণের শি’কার ওই ছাত্রী সাধারণ এক কৃষক পরিবারের মেয়ে। তাদের বাড়ি থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দূরে পাশের গ্রাম আলীনগরের আব্দুস সামাদের ছেলে খলিলুর রহমান (৩০) পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। পরিচয় গো’পন করে ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের ফাঁদ পাতেন খলিল। খলিলুর রহমান বিবাহিত এবং এক স’ন্তানের জনক।

সোমবার রাতে ওই ছাত্রী বাড়িতে একা থাকার সুযোগে রাত ৯টার দিকে খলিলুর রহমান ওই ছাত্রীর বাড়িতে যান এবং জো’রপূর্বক ঘরে ঢুকে তাকে ধ”ণ করেন। এ সময় ওই ছাত্রীর ডাকচি’ৎকারে তার মামা ঘরে ঢুকে এ দৃশ্য দেখতে পান। খলিলুর রহমান পা’লিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে প্রতিবেশীরা তাকে আ’টক করে মা’রধরের পর সারারাত গাছে বেঁ’ধে রাখে। খবর পেয়ে আজ মঙ্গলবার দুপুরে র‌্যা’বের জামালপুর ক্যাম্পের একদল র‌্যা’ব সদস্য ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছে বাঁ’ধা খলিলুর রহমানকে উ’দ্ধার ও আ’টক করে র‌্যা’ব ক্যাম্পে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয় নারায়ণপুর ত’দন্ত কেন্দ্রের ই’নচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল লতিফ পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। মেডিক্যাল পরীক্ষাসহ পরবর্তী আইনি পদক্ষেপের জন্য ধ”ণের শি’কার ওই ছাত্রীকে সদর থানায় নিয়ে গেছে পুলিশ।

র‌্যা’ব-১৪ জামালপুর ক্যাম্পের উপসহকারী পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে ধ”ণের অ’ভিযোগে গ্রামবাসীর হাতে আ’টক খলিলুর রহমানকে সেখান থেকে উ’দ্ধার করে র‌্যা’ব ক্যাম্পে আনা হয়েছে। ধ”ণের অ’ভিযোগে জামালপুর সদর থানায় মা’মলা দা’য়েরের বি’ষয়টি প্রক্রিয়াধীন। মা’মলা দা’য়েরের পর আ’টক খলিলুর রহমানকে থানায় হস্তান্তর করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ