• বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:১৯ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের মহাপ্রয়াণের দুই বছর

রিপোর্টার নাম :
আপডেট সময় : সোমবার, ৪ অক্টোবর, ২০২১
Sattapriyo Mahathero1 1170x660 1

বাংলাদেশী বৌদ্ধদের তৃতীয় সর্বোচ্চ ধর্মীয়গুরু, একুশে পদকপ্রাপ্ত, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সংঘপুরোধা, ত্রিপিটক শাস্ত্রজ্ঞ, বিনয়াচার্য, রামু কেন্দ্রীয় সীমা মহাবিহারের বিহারাধ্যক্ষ, উপসংঘরাজ, পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের মহাপ্রয়াণের দুই বছর পূর্ণ হলো আজ। তিনি ২০১৯ সালের ৩ অক্টোবর  দিবাগত রাত ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে মহাপ্রয়াণ করেছিলেন।

ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতাল বিশ্ববিদ্যালয়ে দিবাগত রাতে মহাপ্রয়াণ করলে পরের দিন ৪ অক্টোবর তাঁর শবদেহ নিজ সাধনপীঠস্থান রামু কেন্দ্রীয় সীমা মহাবিহারে আনা হয়। পরবর্তীতে ৯ অক্টোবর যথাযত ধর্মীয় মর্যাদায় পেটিকাবদ্ধ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁর শবদেহ সংরক্ষণ করা হয়।

পরের বছর ২০২০ সালের ২৭, ২৮ ও ২৯ ফেব্রুয়ারি তিনদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালার মধ্য দিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিসরে তাঁর জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।

পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের মহাপ্রয়াণের পরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ রাষ্ট্রীয় ও জাতীয় অনেক ব্যাক্তিবর্গ শোক প্রকাশ করে বিবৃতি প্রদান করেন। একইসাথে সংসদে শোক প্রস্তাবও আনা হয়।

উল্লেখ্য, পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের ১৯৩০ সালে রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মেরংলোয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫০ সালে তিনি শ্রামণ্যধর্মে দিক্ষিত হন। পরে একই বছরে তিনি উপসম্পদা তথা ভিক্ষুধর্ম গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিনি উচ্চতর ধর্মীয় শক্ষা গ্রহণের জন্য ১৯৫৪ সালে মিয়ানমার (তৎকালীন বার্মা) গমন করেন। টানা দশ বছর সেখানে ধর্মীয় উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের পর ১৯৬৪ সালে নিজ মাতৃভূমিতে ফিরে আসেন। সেই থেকে তিনি নিজ গ্রামের রামু কেন্দ্রীয় সীমা মহাবিহারের অধ্যক্ষ হিসেবে ছিলেন। স্বদেশে ফেরার কয়েক বছর পর ১৯৭১ সালে স্বাধীনতাযুদ্ধ শুরু হলে অনেকে পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারে পাড়ি দিলেও তিনি সবার কথা ভেবে থেকে যান। যুদ্ধকালীন সময়ে তিনি নিজ বিহারে জাতি, ধর্ম নির্বিশেষে আশ্রয় দিয়ে অনেকের প্রাণ রক্ষা করেছিলেন। তাছাড়া, তিনি একটি শান্তিপূর্ণ ও নৈতিক সমাজ বিনির্মাণে আজীবন নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সরকার তাঁকে সমাজ সেবায় একুশে পদক প্রদান করেন।

পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের একাধারে লেখক, অনুবাদক, বিনয়ধর এবং সমৃদ্ধ ধর্মীয় বক্তা ছিলেন। তিনি বিভিন্ন সময় দেশের প্রতিনিধি হয়ে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নেতৃত্ব দিয়েছেন। দেশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও ছিল তাঁর সুপরিচিতি।

দেশে বিদেশে লাভ করেছেন অসংখ্য পদক আর সম্মাননা। এক বর্ণাঢ্য এবং বরেণ্য সাংঘিক জীবনের অধিকারী পণ্ডিত সত্যপ্রিয় মহাথের মহাপ্রয়াণের দুই বছর পূর্ণ হলো আজ। কিন্তু তাঁর অগনিত ভক্তকুল আজও তাঁকে পরম শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর